গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত অনলাইন নিবন্ধন নাম্বার ৬৮

নওগাঁ ভীমপুর বহুমূখি উচ্চবিদ্যালয়ে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ

সরেজমিনবার্তা | নিউজ টি ৩ দিন ৯ ঘন্টা ৩২ সেকেন্ড আগে আপলোড হয়েছে। 1335
...

এ.বি.এম.হাবিব - নওগাঁ সদর উপজেলার হাঁসাইগাড়ী ইউনিয়নের ভীমপুর বহুমুখি উচ্চবিদ্যালয়ের বিভিন্ন দূর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের অভিবাবকেরা অভিযোগ করে বলেন, তাদের ছেলে মেয়েরা প্রতিদিনই স্কুলে যায়। কিন্তু শিক্ষকেরা সকল সাবজেক্টে প্রতিদিন ক্লাস নেয় না। সরকারি বিধি মতাবেক ৬ষ্ট শ্রেনী থেকে ১০ম শ্রেনী পর্যন্ত ছাত্র-ছাত্রীদের যে বিল-বেতন দেওয়া আছে তার চেয়ে অনেক বেশী আদায় করে থাকে। যেসব ছাত্র-ছাত্রীরা উপবৃত্তি পায়,তাদের কাছ থেকেও বেতন,সেশান ফি,পরিক্ষার অর্ধবার্ষিক ফি পর্যন্ত নেওয়া হয়। খেলা-ধুলা শরীর চর্চা শিক্ষার একটি অংশ হলেও স্কুলে পুরোটা মাঠ পাবলিকের কাছে সারা বছর ভাড়া দিয়ে রাখে। যার কারণে ছাত্রছাত্রীরা সেখানে কেন প্রকার খেলাধুলা করতে পারেনা।

অভিযোগ পেয়ে
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, স্কুলে ঢুকে প্রথমেই চোখে পড়ে স্কুল মাঠ। সেখানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে খর এবং প্রায় ১২ থেকে ১৫টি খরের পালা। এবিষয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কেএম আসাদুল্লাহ বলেন,এগুলো ভিডিও করেন না দু,একদিনের মধ্যে এসব খরের পালা সরিয়ে নেবে। এরপর অফিসে বসে ৮ম ও শ্রেনীতে রেজিষ্ট্রেশন করতে বিধি মতাবেক ১৪৫টাকা কিন্তু আপনি কত টাকা করে ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে নিয়েছেন, তখন তিনি বলেন, ৩০০টাকা করে নেওয়া হয়েছিলো কিন্ত উপরের অনেক চাপছিলো তাই পরবর্তীতে ১০০টাকা করে ফেরত দেওয়া হয়েছে। এরপরও ৫৫টাকা করে বেশী নিয়েছেন, এবং ৯ম শ্রেনীর রেজিষ্ট্রেশন বোর্ড ফি ২১৫ টাকা। সেখানেও ৩০০টাকা করে ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে নিয়েছেন,এখনো তা ফেরত দেন নাই এবং স্কুলে কোচিং করানো নিষেধ থাকা সত্বেও কোচিং করাচ্ছেন এবং টাকা নিচ্ছেন এমন প্রশ্নে এরিয়ে গিয়ে তিনি বলেন, আমাদের অনেক খরচ হয়তো তাই একটু আধটু বেশী না নিলে হয়না।

বোর্ডের নির্দেশ অনুযায়ী ১৪৫০ টাকা থাকলেও আপনি এস এস সি পরিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কত টাকা করে নিয়েছেন, তিনি বলেন, আমরা তাই নিয়েছি। ঠিক তখনই এক পরিক্ষার্থীকে জিজ্ঞেসা করিলে পরিক্ষার্থী চুপ হয়ে যায় কিছুক্ষন পরে বলে ১৫/১৬ শত করে নিয়েছে। ওই মুহুর্তে প্রধান শিক্ষক পরিক্ষার্থীর দিকে তাকিয়ে বলেন,১৪৫০টাকা করে নেওয়া হয়েছে-না। তখন পরিক্ষার্থী বলে,,ও,, হ্যাঁ হ্যাঁ।

প্রধান শিক্ষক কেএম আসাদুল্লাহ সহ ৪টি ক্লাসে গিয়ে, উপবৃত্তি যেসব ছাত্র-ছাত্রীরা পায়, তাদের বিল, বেতন,সেশন ফি নেওয়া হয়েছে-কিনা জানতে চাইলে,প্রধান শিক্ষকের সামনেই উপবৃত্তি পাওয়া ছাত্র-ছাত্রীরা জানায়, হ্যাঁ,,তাদের কাছ থেকে স্কুলের সকল প্রকারের বিল,বেতন,সেশন ফি সহ সকল বিষয়ে টাকা নেওয়া হয় এবং তারা এখন পর্যন্ত দিয়ে আসছে। অভিযোগের সকল বিষয়ে সত্যতা পেয়ে স্কুল থেকে বের হওয়ার পথে প্রধান শিক্ষকসহ একাধিক শিক্ষক খবরটি পত্রিকায় প্রকাশ না করার জন্য অনুরোধ করেন। স্কুলের বাহিরে ছাত্র-ছাত্রী ও অনেক অভিবাবকেরা অভিযোগ করে বলেন, তারা এস এস সি পরিক্ষার্থী। তাদের কাছ থেকে এবার ১৮০০/-টাকা করে নিয়েছে এবং যাহারা সাইয়েন্স থেকে পরিক্ষা দিচ্ছে তাদের কাছ থেকে ১৯০০/-টাকা করে নিয়েছে। কিন্তু কোন প্রকার রশিদ কাহকেই দেওয়া হয় নাই বলে তারা জানায়।

একাধিক অভিভাবক  অভিযোগ করে বলেন, তাদের ছেলে মেয়েরা উপবৃত্তি পান অথচ তাদের কাছ থেকে স্কুলের সকল প্রকার বিল-বেতন নেওয়া হয় বলে সকল অভিভাবক সাংবাদিকদের বেতনের রশিদ দেখান। এবং তারা এ স্কুলে সকল দুর্নীতির বিষয়ে দায়ী শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা এবং একটি সুষ্ঠ স্থায়ী একটি সুরাহা চান।

এ বিষয়ে নওগাঁ উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ ওয়াসিহুর রহমাম কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি আজই একটি চিঠিদ্বারা নোটিশ করবো এবং কয়েকদিন পরে তিনি নিজেই সেখানে যাবে এবং প্রমান সাপেক্ষে ব্যাবস্থা নিবেন বলে জানান।

...
A.b.m Habibur Rahman
01713667189

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোহাম্মদ বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া
01731 80 80 79
01798 62 56 66

ব্যবস্থাপনা সম্পাদক
আল মামুন

প্রধান কার্যালয় : লেভেল# ৮বি, ফরচুন শপিং মল, মৌচাক, মালিবাগ, ঢাকা - ১২১৯ | ই-মেইল: news.sorejomin@gmail.com

...

©copyright 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা

Family LAB Hospital
সর্বশেষ সংবাদ