+

শার্শায় করোনা পরিস্থিতিতে (৭) মাইল পশুহাট কতৃপক্ষ ও ব্যবসায়ী'রা কয়েক কোটি টাকা লোকসানের মুখে পড়েছে।

সরেজমিনবার্তা | নিউজ টি ১২ দিন ৩ ঘন্টা ৩ সেকেন্ড আগে আপলোড হয়েছে। 1590
...

প্রতিনিধি শার্শা

 

 যশোর শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়া (৭) মাইল  পশুহাট   করোনা সংক্রমণের মারাত্মক ঝুঁকি থাকায়। ঐতিহ্যবাহী পুরনো সাতমাইল  হাটের যাতায়াত মুখে ভিতরে সংক্রমণ ঠেকাতে এই মুহূর্তে গরুহাট কতৃপক্ষ  সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরিচালনা করলেও এতে  করে চরম বিপাকে পড়েছেন ইজারা কৃত পতিষ্ঠান,ও ব্যবসায়ীরা।

 

করোনা সংক্রমণের মারাত্মক সময় পার করছে যশোরসহ গোটা দেশ। সংক্রমিত রোগীর দিক থেকে রাজধানী ঢাকার পর কিছুটা প্রভাব পড়েছে দক্ষিণের খুলনা  বিভাগে । ইতোমধ্যে সংক্রমণের সংখ্যা বাড়তে থাকায় হাটে  ক্রেতা বিক্রেতা সংখ্যা অনেক হ্যাস পেয়েছে।  

 

এ অবস্থায় শার্শার স্থায়ী গরুর বাজার হিসেবে চিহ্নিত বাগআঁচড়া (৭) মাইল গরুর হাটকে পরিচালনা'র অনুমোদন দেয়া উপজেলা প্রশাসন। এতে করে চরমভাবে বিপাকে গরুহাট কতৃপক্ষ ও ব্যবসায়ীরা।  বিগত বছরগুলোতে  গরু হাট কমিটি হাট পরিচালনা করলেও। মহামারী করোনা পরিস্থিতিতে সরকারী নিদর্শন অনুযায়ী বিগত কয়েক মাস গরু হাট বন্ধ থাকার কারণে ডাকের চার ভাগের এক ভাগ টাকাও কতৃপক্ষ এহাট থেকে উদ্ধার পারবেন না বলে নিশ্চিত করেছেন ব্যবসায়ীরা।                  

 

তবে হাট ইজরাদারা বলছেন, সামাজিক দুরুত্ব বা সরকার যেভাবে চাই সেইভাবে তারা হাট পরিচালনা করতে প্রস্তুত রয়েছে। এতে করে গরুর হাট বা ব্যবসার সাথে যারা সংশ্লিষ্ট রয়েছেন তারা বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাবেন না বলে জানা গেছে ।

 

ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে প্রতি-বছর জমে উঠে দেশের অন্যতম বৃহৎ (৭) মাইল  এই গরুর হাট, এই হাট  মহাসড়কে'র সাথে হওয়া এবং একাধিক  ব্যাংকের শাখা থাকায়।   

 

দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের সঙ্গে এই হাটের যোগাযোগ খুব সহজ। সেই সুযোগে এ হাটে আসতো দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে বড় পাইকারি ব্যবসায়ীরা, ও দেশের সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে ট্রাক ভর্তি করে এই হাটে গরু আনেন।  বিক্রির জন্য এছাড়া, খুচরা ও ছোট পাইকারি ব্যবসায়ীরাও গ্রাম ঘুরে কৃষকদের কাছ থেকে গরু নিয়ে আসেন এই গরু হাটে ।

 

স্থানীয় সূত্র জানাযায়, ‘আগে এ হাটে গরু কেনার জন্য ব্যবসায়ীরা ৩০/৪০টি জেলা থেকে ট্রাক নিয়ে আসতেন।  গরু ভর্তি করে নিয়ে যেতেন ব্যবসায়ীরা। এখন  অনেক জায়গায় গরুর হাট হয়ে গেছে। তাই আগের মতো এত গরু বিক্রি হয় না এই হাটে। তারপরও এই এলাকায় এত বড় হাট আর নেই।

 

এ বছর করোনা সংক্রমণের মারাত্মক ঝুঁকি থাকায় বিগত কয়েক মাস হাট না বসায়  আর্থিক ক্ষতি মুখে পড়েছেন গরু হট কতৃপক্ষ ও ব্যবসায়ীরা। 

 

 গরুহাট সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি ও বিশিষ্ট বেক্তিগণ  বলছেন  গরুর হাট কমিটি ও ব্যাবসায়ীরা কয়েক কোট টাকা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। হাট সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরাসহ এ  অঞ্চলের সাধারণ মানুষ অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছেন। 

 

 উল্লেখ্য: মহামারী করোনা পরিস্থিতিতে

হাট  কর্তৃপক্ষ সরকারি স্বাস্থ্য বিধি মেনে উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনা মেনে  হাট কর্তৃপক্ষ স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে নিয়মিত মাইকিং স্বাস্থ্য সচেতন সাইনবোর্ড টানিয়ে ক্রেতা-বিক্রেতাদের কে স্বাস্থ্য সচেতনতা তদারকি কমিটির মাধ্যমে হাট পরিচালনা করছেন।         

...
MD. ZAHANGIR ALAM(SJB:E014)
Mobile : 01714590443

সম্পাদক ও প্রকাশক
মোহাম্মদ বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া
01731 80 80 79
01798 62 56 66

প্রধান কার্যালয় : লেভেল# ৮বি, ফরচুন শপিং মল, মৌচাক, মালিবাগ, ঢাকা - ১২১৯ | ই-মেইল: news.sorejomin@gmail.com , thana.sorejomin@gmail.com

...

©copyright 2013 All Rights Reserved By সরেজমিনবার্তা

Family LAB Hospital
সর্বশেষ সংবাদ